মেইন ম্যেনু

সানি খুবই প্রোফেশনাল: ইন্দ্রজিৎ (ভিডিও)

সানি

ইন্দ্রজিৎ লঙ্কেশ, কর্ণাটকের তরুণদের মধ্যে সবেচেয়ে জনপ্রিয় নির্মাতা; তরুণদের আইকনও বটে। সম্প্রতি তিনি বলিউড থেকে সানি লিওনকে প্রথমবার কর্ণাটকের ছবিতে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন। যেখানে সানিকে বলিউড থেকে নিষিদ্ধ করে দেয়ার হুমকি ধামকি দেয়া হচ্ছে প্রতিনিয়ত, সেখানে ছোট্ট একটি শহরের ফিল্মে সাহস করে মূল ধাচের ছবিতে অভিনয় করালেন তাকে দিয়ে। ফলে নানা কারণেই আলোচিত সমালোচিত নির্মাতা এখন ইন্দ্রজিৎ লঙ্কেশ। চলতি মাসের সেপ্টেম্বরের ১৮ তারিখে মুক্তি পেতে যাচ্ছে সানি লিওন অভিনীত ইন্দ্রজিতের ছবি ‘লাভ ইউ আলিয়া’, যদিও ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে সানি নেই, ভূমিকা চাওলা। কিন্তু ক্যামিও চরিত্রে তাকে দেখা যাবে সানিকে। এর আগেও কর্ণাটকের ছবিতে বলিউড থেকে দীপিকা পাডুকোনকে পরিচয় করিয়েছিলেন ইন্দ্রজিৎ। কর্ণাটকে প্রথমবার সানি পরিচয় করানো প্রসঙ্গে এবং নিজের আসন্ন ছবি ‘লাভ ইউ আলিয়া’ নিয়ে সম্প্রতি ছোট্ট একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছে বলিউডের একটি সংবাদমাধ্যম।

সানির সাথে কাজের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে বলুন?
ইন্দ্রজিৎ: আমি আগে থেকেই সানিকে চিনি, সে কাজের ব্যাপারে খুব সিরিয়াস এবং পাঙ্কচুয়াল। শ্যুটিংয়ের সময় তাকে ধীরস্থির মনে হয়েছে। তার সেটে তার আচরণ সবাইকেই মুগ্ধ করেছে। প্রতিদিন সকাল সাড়ে আটটায় মেকাপ রুমে এসে সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টায় বেড়িয়ে গেছে। সে সত্যিই খুব প্রোফেশনাল।

‘লাভ ইউ আলিয়া’ ছবির শ্যুটিংয়ে সানি পাঁচদিন ছিল, তাকে এরজন্যে কর্ণাটকের ভাষাও বলতে হয়েছে, এটা কিভাবে সম্ভব হলো?
ইন্দ্রজিৎ: আসলে সানি কাজের প্রতি সিরিয়াস থাকায় ভাষা নিয়ে খুব একটা সমস্যায় পড়তে হয়নি। আমি তাকে আগের দিনেই সংলাপগুলো দিয়ে দিতাম, সে সেগুলো চর্চা করে পরদিন খুব চমৎকারভাবেই বলে যেতে পেরেছে।

খবর বেরিয়েছে যে, লাভ ইউ আলিয়া ছবির শ্যুটিং থাইল্যান্ডে হয়নি; এটা সত্য?
ইন্দ্রজিৎ: না, অবশ্যই সত্য নয়, আমি এই ছবিতে থাইল্যান্ডের একটা ইউনিক জায়গা দেখাতে চেয়েছিলাম, আমি জানি কর্ণাটকের বেশীর ভাগ ছবির শ্যুটিং হয় থাইল্যান্ডে, সেই একই জায়গা, একই দৃশ্য এগুলো একঘেয়ে হয়ে গেছে। তাই আমি থাইল্যান্ডের কিছু অসাধারণ জায়গা আমার ছবিতে তুলে ধরেছি। খুব ভোর ও সন্ধ্যার বেশকিছু দৃশ্য আমি ‘লাভ ইউ আলিয়া’তে দেখিয়েছি, যা এর আগে আমি কারো মধ্যে দেখেনি।

আপনার ছবির নাম ‘আলিয়া’ নামটি কি এই ছোট্ট শহরের দর্শকদের দ্বন্দে ফেলে দিচ্ছে না?
ইন্দ্রজিৎ: আমি জানি ‘আলিয়া’ মানে হচ্ছে কর্ণাটকের শালা, আর এই নামটি আমার ছবির টাইটেল থাকায় দর্শক শ্রোতারাতো একটু কনফিউজ থাকবেই। ২০০৪ সালে যখন আমি ‘মোনালিসা’ বানিয়ে ছিলাম, তখনওতো লোকে বলাবলি করছিল; কিন্তু আমি মনে করি না ছবির নামে মানুষের আসে যায়, সুতরাং কনফিউজড হওয়ার কোনো কারেই নেই।

‘লাভ ইউ আলিয়া’র ট্রেলার…



« (পূর্বের সংবাদ)