মেইন ম্যেনু

সিনেমা হলে ‘রানা প্লাজা’র আর্তনাদ

photo-1441878955

শেষ মুহূর্তে এসে আবারো আটকে গেল ‘রানা প্লাজা’ চলচ্চিত্রের মুক্তি। এ খবর শোনার পর থমকে গেছে সিনেমা হল কর্তৃপক্ষ। প্রচারণা বন্ধ, নামিয়ে ফেলছে লাইটিং, খুলতে হচ্ছে ব্যানার, লাগাতে হচ্ছে পুরাতন আর আগেকার ছবির পোস্টার। সিনেমা হল কর্তৃপক্ষের কথা, একটু সময় দিয়েও যদি ছবিটা বন্ধের কথা বলা হতো, তাহলে এমন সমস্যায় পড়তে হতো না তাঁদের।

প্রদর্শক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিয়া আলাউদ্দি বলেন, ‘একটি ছবি মুক্তি দিতে হলে এখানে সবারই কিছু বিষয় থাকে। প্রযোজকের কথা বাদ দিলে আমাদের সিনেমা হলের পক্ষ থেকেও কিছু কাজ থাকে। স্থানীয় প্রচারণার দায়িত্ব কিন্তু সিনেমা হলের। মাইকিং, পোস্টারিংসহ অনেক কাজ সিনেমা হলের স্বার্থেই আমরা করে থাকি, যা করতে অনেক টাকা খরচ হয়। দুর্ভাগ্য আমাদের, এমন একটা সময় আমরা ছবির ওপর নিষেধাজ্ঞা পেলাম, যখন আমরা আর বুঝেই উঠতে পারছি না আজ কী ছবি হলে চালাব! আইনের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল। তবে আমাদের পরামর্শ থাকবে, এ ধরনের ঘোষণা ছবি মুক্তির অন্তত কিছুদিন আগে জানানোর। তাহলে অনেকেই ক্ষতির হাত থেকে বাঁচবে।’

রাজমনি সিনেমা হলের ম্যানেজার অহিদ বলেন, ‘ভাই, বিপদে পড়ে গেছি। সকাল থেকেই দর্শক আসছে, এসে আমাদের সঙ্গে তর্ক করছে। অনেকেই জানেন না যে, ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে না। শাকিব খানের পুরাতন একটা ছবি চালাচ্ছি। আমরা ছবিটার (রানা প্লাজা) জন্য ঈদের মতো লাইটিংয়ের ব্যবস্থা করেছিলাম, সবই এখন নামিয়ে ফেলছি। অনেক টাকা খরচ করেছিলাম প্রচারণায়। পুরাতন ছবি এখন চালাচ্ছি, মনে হয় না খরচ উঠবে। মনে করেছিলাম, ঈদের আগে ভালো একটা ছবি আসছে, এবার ঈদটা ভালোভাবেই করতে পারব। ঈদের আগে সবাইকে বেতন দিয়ে ঈদের আনন্দ সবাই মিলে উপভোগ করব। এবারের ঈদটাই মাটি হয়ে গেল।’

কারওয়ান বাজারের পাশে পূর্ণিমা সিনেমা হলের সামনে জড়ো হয়ে বসেছিলেন হলের কয়েকজন কর্মচারী। তাঁরা জানান, গত রাত ১২টায়ও তাঁরা বুঝতে পারছিলেন না, আজ কী ছবি চালানো হবে। সকালে এসে শুনলেন, ‘অগ্নি-২’ চালানো হবে। সকাল থেকেই অনেক দর্শক এসে বিরক্তি নিয়ে ছবি দেখছে, কারণ এর আগে তারা এই ছবি আরেকবার দেখেছে। একটু সময় দিয়ে ছবিটি বন্ধ হলে বিষয়টি নিয়ে তাঁরা অন্য কিছু করতে পারতেন বলে মন্তব্য করেন।

আপিল বিভাগের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদনের শুনানি শেষে গতকাল দুপুরে আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ‘রানা প্লাজা’ ছবিটি প্রদর্শনে ১৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্থিতাবস্থা রাখার আদেশ দেন। রিভিউ আবেদনটি করেছিলেন ন্যাশনাল গার্মেন্ট অ্যাসোসিয়েশন ওয়ার্কার্স লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম রনি।

এর আগে গত ২৪ আগস্ট রানা প্লাজা ধসের ঘটনা নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘রানা প্লাজা’র প্রদর্শনী ও সম্প্রচারে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন হাইকোর্ট। চলচ্চিত্রটি ৪ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরে নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় ছবিটি ১১ সেপ্টেম্বর মুক্তি দেওয়ার প্রস্তুতি নেয় ছবিটির প্রযোজক ও পরিচালক। কিন্তু এর আগেই ১০ তারিখ আবারো নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়ল ছবিটি।