মেইন ম্যেনু

সুন্দরবন রক্ষায় হরতালসহ ৭ দফা কর্মসূচি ঘোষণা

সাত দফা বাস্তবায়নের দাবিতে হরতালসহ ৫ দফা কর্মসূচি ঘোষণার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে সুন্দরবনে রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধের দাবিতে তেল-গ্যাস খনিজসম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির মহাসমাবেশ।

তেল-গ্যাস খনিজসম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত মহাসমাবেশ থেকে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

জাতীয় কমিটির ৭ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হলে ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৬ জানুয়ারি ঢাকা মহানগরীতে অর্ধদিবস হরতাল কর্মসূচি পালিত হবে।

সমাবেশে জানানো হয়, সুন্দরবন রক্ষা এবং রামপাল প্রকল্প বাতিলের দাবিতে আগামী ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালন করবে জাতীয় কমিটি। দেশবাসীকেও এ দুটি দিবস এভাবে পালনের আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি।

ঢাকাসহ সারা দেশে সমাবেশ পালন করার মধ্য দিয়ে ২৬ ডিসেম্বর দাবি দিবস পালন করা হবে বলেন জানান আনু মুহাম্মদ।

সুন্দরবন রক্ষার এ আন্দোলন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে উল্লেখ করে আনু মুহাম্মদ বলেন, ভারতের ৪৩টি সংগঠন রামপাল প্রকল্প বাতিলের দাবিতে সমর্থন দিয়েছে। বিশ্ব প্রতিবাদ দিবস পালিত হবে ৭ জানুয়ারি। ভারত, বাংলাদেশসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এই প্রতিবাদ দিবস পালিত হবে। রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ বিভিন্ন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল করে কীভাবে দেশে জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়, ১৪ জানুয়ারি এ বিষয়ে একটি মহাপরিকল্পনা উপস্থাপন করা হবে।

দেশের বিশিষ্ট জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা এই পরিকল্পনা তৈরি করেছেন বলে আনু মুহাম্মদ জানান। এরপরও যদি সরকার এই প্রকল্প বাতিল না করে, তাহলে ২৬ জানুয়ারি ঢাকায় অর্ধদিবস সর্বাত্মক ধর্মঘট ও হরতাল কর্মসূচি পালন করা হবে।