মেইন ম্যেনু

সেন্ট্রাল হাসপাতালে এক গৃহবধূর চার সন্তান প্রসব

central-hospital-lrg20161020225509

রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে এক গৃহবধূ এক সঙ্গে চার সন্তানের জন্ম দিলেন। বুধবার সিজারিয়ান অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ২০ বছর বয়সী ওই গৃহবধূ এক পুত্র ও তিন কন্যা সন্তানের জম্ম দেন। অস্ত্রোপচারের নেতৃত্ব দেন উত্তরার শহীদ মনসুর আলী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের গাইনি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সংযুক্তা সাহা।

অধ্যাপক সংযুক্তা সাহা জানান, বিয়ের তিন বছর পার হলেও নিঃসন্তান ছিলেন ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার নাঙ্গলমোড়া নোয়াপাড়া গ্রামের দুবাই প্রবাসী সাইফুল ইসলাম ও শারমিন আক্তার দম্পতি। তিনি প্রতি সপ্তাহে ফেনীতে রোগী দেখেন বলে সেখানেই নিয়মিত চেকআপ করাতেন শারমিন।

এক পর্যায় গর্ভে সন্তান আসলে আলট্রাসনোগ্রাম করে জানা যায়, শারমিন চারটি সন্তান ধারণ করছেন। তবে গর্ভকালীন শারমিনের কোনো ত্রুটি না থাকলেও সন্তানগুলো উল্টে ছিল (ব্রিচ প্রেজেন্টেশন)। তাই ঝুঁকি এড়াতে ৩৬ সপ্তাহের গর্ভবতী অবস্থায় প্রসূতিকে এক সপ্তাহ পূর্বেই সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। সে মোতাবেক তার সিজার হয় বুধবার রাত ১টার দিকে। তাদের জন্য কোনো আইসিইউ বা লাইফ সাপোর্ট লাগেনি। এখন সবাই সুস্থ রয়েছেন।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. এমএ কাশেম জানান, প্রসূতি ও নবজাতকদের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ইনকিউবেটর, আইসিইউ, এনআইসিইউসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থাই আছে এই হাসপাতালে। যে কোনো সমস্যায় সংশ্লিষ্ট ইউনিটকেও প্রস্তুত রাখা আছে।

দরিদ্র পরিবারের পক্ষে আর্থিক সাহায্য কামনা:
নবজাতকদের নানী শাহনাজ বেগম বলেন, তিন বছর পর সন্তান হওয়াতে তারা বেজায় খুশি। তবে তার মেয়ে শারমিনের পরিবারের আর্থিক অবস্থা তেমন ভালো না, এটা নিয়ে তারা একটু দুশ্চিন্তায় আছেন।

পরিবারটিকে সহযোগিতা করতে চাইলে শারমিনের মামা মো. সফিউল ইসলাম ভুইয়া, অ্যাকাউন্ট নম্বর ১৫৬২১০১০০০০৭৫৩, প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড, ফেনী- এই ঠিকানায় টাকা পাঠানো যাবে।

শাহনাজ বেগমের সঙ্গে ০১৮৪৩ ৭১৫৩৯৪ নম্বরে কথা বলা যাবে। বিকাশ করতে চাইলে ০১৮১৮ ১৯৭৭৭৬ (পারসোনাল)।