মেইন ম্যেনু

সোমবার সারা দেশে বিএনপির বিক্ষোভ

বিএনপিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ার প্রতিবাদে আগামীকাল সোমবার সারা দেশে বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে দলটি।

রোববার নয়াপল্টনে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

সমাবেশ করতে না দেওয়াকে সরকারের নোংরা রসিকতা বলে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের প্রতিনিধি দল ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে একাধিকবার দেখা করতে গেলেও তারা দেখা দেননি। সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে বিরোধী দলের কর্মসূচিকে নিয়ে মারাত্মক প্রতারণা, প্রহসন ও ভেল্কিবাজির আশ্রয় নিয়েছে বর্তমান শাসক গোষ্ঠি।

অনুমতি চেয়ে গণপূর্ত বিভাগে বিএনপির পাঠানো চিঠির উল্টো পাশে উত্তর দেওয়াকে প্রমাণ করে এই সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ, যোগ্য নয়। তারা জনমত ও আইনের শাসনে বিশ্বাস করে না। তারা ক্ষমতায় এসে গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছে। এখন চলছে মিলাদ মাহফিল ও কুলখানি। এভাবেই সরকার চলছে, যোগ করেন মহাসচিব।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার আইন করে জনসভার অনুমতি বন্ধ না করলেও তারা জনসভা করতে দিচ্ছে না। তারা মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করেছে। আপনারা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন বাংলাদেশ কোন দিকে ধাবিত হচ্ছে। এখানে রাজনৈতিক পরিস্থিতি কত ভয়াবহ। বিরোধী দলের গণতান্ত্রিক অধিকার কী নিষ্ঠুরতায় নিষ্পেষিত হচ্ছে। যা দেশবাসী প্রতিদিন প্রতিক্ষণ উপলব্ধি করছেন।

এ সময় ঢাকা মহানগরের থানায় থানায় এবং সারাদেশে জেলা ও উপজেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আতাউর রহমান ঢালী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, সহ-সাংগঠনিক আবদুস সালাম আজাদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ।