মেইন ম্যেনু

স্বাবলম্বী হয়ে ওঠার প্রশিক্ষণ পাবেন সোয়া লাখ নারী

woman-trainning20161022214518-1

এক লাখ ১৫ হাজার গ্রামীণ নারীকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী করার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে। এ জন্য ১০৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প হাতে নেয়ার চিন্তা করছে সরকার। এ অর্থ দিয়ে দেশের প্রান্তিক পর্যায়ের অনগ্রসর শিক্ষিত ও স্বল্পশিক্ষিত গরিব নারীদের জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খোলা হবে। মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত একটি প্রকল্প পরিকল্পনা কমিশনে পাঠিয়েছে।

কমিশন সূত্রে জানা গেছে, অবকাঠামোগত সুবিধা না থাকায় উপজেলা পর্যায়ের পিছিয়ে পড়া গরিব নারীদের প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এগিয়ে আনা সম্ভব। কিন্তু বিভিন্ন কারণে তারা প্রশিক্ষণ পাচ্ছেন না। বর্তমানে মহিলাবিষয়ক অধিদফতর আত্মকর্মসংস্থান ও দারিদ্র্য দূরীকরণের মাধ্যমে অনগ্রসর নারীর ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এই উদ্যোগকে এগিয়ে নিতে উপজেলা পর্যায়ে নারীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে ৪২৬টি উপজেলায় প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলোতে ৩টি ব্যাচে প্রতি ব্যাচে ৩০ জন করে চার মাস মেয়াদি প্রশিক্ষণ দেয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনা কমিশনের আর্থসামাজিক অবকাঠামো বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সদস্য আবদুল মান্নান বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে এক লাখ ১৫ হাজার ২০ জন নারীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা হবে। প্রকল্পটি ক্ষমতায়ন ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।

জানা গেছে, এ প্রকল্পের আওতায় নারীদের বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষিত করা হবে। এর মধ্যে রয়েছে- টেইলারিং, বাটিক, সেমাই প্রস্তুতকরণ, বিউটিফিকেশন, ক্রিস্টাল, শোপিস, শতরঞ্জি, প্যাকেট ও মোমবাতি তৈরি করা। একইসঙ্গে বেসিক কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, ওভেন সিউইং মেশিন, স্কার্ফ ও টুপি তৈরি, ফ্যাশন ডিজাইন, ট্যুরিস্ট গাইড সেলসম্যানশিপ, মোবাইল সার্ভিসিং অ্যান্ড রিপেয়ারিং প্রশিক্ষণ, হাউজকিপিং, ফ্রন্ট ডেস্ক ম্যানেজমেন্ট প্রসঙ্গে কোর্স করানো হবে।

এছাড়া কৃষিকাজে আগ্রহীদের জন্য থাকবে মাশরুম ও মৌচাষ প্রশিক্ষণ, উলের পোশাক তৈরি প্রশিক্ষণ। ইতোমধ্যেই প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়াকরণ শেষ করেছে পরিকল্পনা কমিশন। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদন পেলে চলতি বছর থেকে ২০১৯ সালের জুনের মধ্যে মধ্যে এটি বাস্তবায়ন করবে মহিলাবিষয়ক অধিদফতর।