মেইন ম্যেনু

হার্ভার্ডের গবেষণা: কর্মজীবী মায়েদের কন্যারা বেশি সফল

mother_0

কর্মজীবী মায়েদের কন্যারা গৃহিনী মায়েদের কন্যাদের তুলনায় বেশি সফল বলে হার্ভার্ড বিজনেস স্কুলের এক গবেষণায় দাবি করা হয়েছে।

সম্প্রতি ২৪ দেশ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল। প্রকাশিত ওই গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, কর্মজীবী নারীদের সন্তানরা কর্মক্ষেত্রে বেশি সফল হয়, তারা সুপারভাইজারের মতো পদে বেশি চাকরি পায় এবং গৃহিনী নারীদের কন্যাদের তুলনায় বেশি টাকা আয় করেন।

গবেষণা প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, কর্মজীবী মায়েদের ছেলেরা গৃহিনী মায়েদের ছেলেদের চেয়ে পরিবারের সদস্যদের প্রতি বেশি যত্মশীল এবং ঘরের কাজ বেশি করেন। এ ছাড়া কর্মজীবী মায়েদের কন্যারা গৃহিনী মায়েদের কন্যাদের চাইতে সাড়ে চার শতাংশ বেশি চাকরি পায়।

গবেষণা প্রতিবেদনের লেখক এবং হার্ভার্ড বিজনেস স্কুলের অধ্যাপক ক্যাথলিন ম্যাগিন বলেন, কর্মজীবী মায়েদের কন্যাদের কর্মক্ষেত্রে সুপারভাইজার পদে কাজ করার সম্ভাবনা বেশি থাকে। আমরা ধারণা করেছিলাম, এটা হয়তো চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রভাব ফেলবে কিন্তু এটা যে সুপারভাইজার জাতীয় পদে কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রেও প্রভাব ফেলবে সেটা আমরা ভাবিনি।

গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন, কর্মজীবী নারীদের শতকরা ৩৩ শতাংশ মেয়েরা সুপারভাইজার পদে কর্মরত যেখানে গৃহিনী মায়েদের কন্যাদের সুপারভাইজার পদে রয়েছেন শতকরা ২৫ শতাংশ।

ম্যাকগিন বলেন, কর্মজীবী মায়েরা বাসায় এমন পরিবেশ তৈরি করেন যা দেখে তাদের কন্যারা শিখতে পারেন তাদের দৃষ্টিভঙ্গি কেমন হওয়া উচিত।

ইন্টারন্যাশনাল সোশ্যাল সার্ভে প্রোগ্রামের আওতায় ২০০২ এবং ২০০৩ সালে সংগ্রহ করা হয় ওই ডাটা। ওই সময়ে তাদের করা বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর থেকে এই তথ্য পেয়েছেন গবেষকরা।

ম্যাকগিন বলেন, গবেষণায় দেখা গেছে গৃহিনী মায়েদের কন্যাদের চাইতে কর্মজীবী মায়েদের কন্যারা গড়ে ৫ হাজার ২০০ ডলার বেশি আয় করেন।

গবেষণা প্রতিবেদনের পর ম্যাকগিন বলেন, আপনি কর্মজীবী হলে সেটা আপনার সন্তানের উপর একটি ভালো প্রভাব ফেলে। আপনি যখন কাজে যান, তখন আপনি আপনার সন্তানদের এটা বুঝতে শেখাচ্ছেন যে তাদের জন্য অনেক সুযোগ রয়েছে।