মেইন ম্যেনু

হুইল চেয়ারে বসানো হচ্ছে খাদিজাকে

সিলেটের কলেজ শিক্ষার্থী খাদিজা বেগম নার্গিসকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে ঘোরানো হচ্ছে। তবে শরীরের ভারসাম্য রাখার সামর্থ না থাকায় তাকে বেল্ট বেঁধে দেয়া হয়।

রোববার খাদিজার ভাই শাহিন আহম্মেদ এ কথা জানান।

তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে খাদিজাকে বেড থেকে তুলে কিছু সময় হুইল চেয়ারে ঘোরানো হচ্ছে। রোববারও তাকে ঘোরানো হয়েছে। এ সময় বেল্ট বেঁধে দেয়া হয়। কারণ তার নিজের শরীরের ভারসাম্য রাখার সামর্থ নেই।

শাহিন আহম্মেদ বলেন, খাদিজাকে আরও অন্তত দুই থেকে তিন মাস পর্যাবেক্ষণে রাখা হবে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। তারপর বলা যাবে তার অবস্থা কোন দিকে যাচ্ছে।

গত ৩ অক্টোবর বখাটে বদরুল আলম খাদিজার ওপর হামলা চালায়। মুমূর্ষু অবস্থায় ৪ অক্টোবর তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে আনা হয়। সেখানে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

প্রথম দফায় তার মাথায় এবং দ্বিতীয় দফায় হাতে অস্ত্রোপচার করা হয়। তার অবস্থার একটু উন্নতি হলে লাইফ সাপোর্ট খুলে দেয়া হয়। এরপর আইসিইউ থেকে বের করে এইসডিইউ-তে স্থানান্তর করা হয়। হাসপতালে হাই ডিপেনডেন্সি ইউনিটি (এইসডিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

এদিকে রোববার খাদিজার ওপর হামলায় দায়ের করা মামলার শুনানির কথা ছিল। কিন্তু চার্জশিট দাখিল না হওয়ায় শুনানি স্থগিত করেছেন আদালত।