মেইন ম্যেনু

১৩০ ফুট পানির নিচে বিয়ে

মানুষ বিয়ে করার জন্য কত জায়গাই না বেছে নেন। তাই বলে পানির নিচে বিয়ে! বিষয়টা আর দশটা মানুষের জন্য আশ্চর্যজনক ও অসম্ভব মনে হলেও পানি নিয়েই যাদের কারবার তাদের ক্ষেত্রে বেমানান হলেও অসম্ভব কিছু না।

এক জাপানি প্রেমিক আর মার্কিন প্রেমিকা বিয়ের গাউন, শার্ট পড়ে ১৩০ মিটার পানির নিচে গিয়ে বিয়ে করেন। হিরোযুকি ইয়োশিদা এবং সান্ড্রা স্মির্থ দুজনই পেশায় ডাইভিং প্রশিক্ষক। পানির প্রতি তাদের যে ভালোবাসা ও সম্মান সেটি জানাতেই তারা এ অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে করেন। তাদের এই বিয়ে শুধুমাত্র অদ্ভুদ বা আশ্চর্যজনকই নয়। সাথে সাথে এটি গড়েছে বিশ্বরেকর্ডও।

থাইল্যান্ডের ট্রাংয়ে অবস্থিত সং হং লেকের নিচে এক প্রাকৃতিক গুহায় জলের প্রায় ৪২৭ ফুট বা ১৩০ মিটার নিচে বিয়ের আয়োজন সম্পন্ন করলেন এই দম্পতি। পানির এত গভীরে এর আগে কেউ বিয়ে করেননি এখন পর্যন্ত।

সান্ড্রাই প্রথম হিরোয়ুকিকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে বলেছিলেন, ‘জাপানিজ ওয়াইফ হওয়ার আগে তোমার কাছে একটা উপহার চাইব। সেটা হলো আমাদের বিয়ের অনুষ্ঠান হতে হবে পানির নিচে।’ সান্ড্রার সেই চাওয়া পূরণ করেই হিরোয়ুকি পানির ১৩০ মিটার নিচে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করলেন।

তারা বিগত ৬ মাস যাবত ১৯০ মিটার গভীরে যাওয়ার প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলেন বলে জানা যায়। বিবাহের সময় তাদের সাথে উপস্থিত ছিলেন তাদের বন্ধু ও বিবাহের সাক্ষী “বেন রেইমেন্তাস”, তারা জানায় আংটি পরিবর্তনের সময়টি বিবাহ অনুষ্ঠানের সবছে কঠিন সময় ছিল।

বি: দ্র: গত ২রা ফেব্রুয়ারী এনডিটিভি – তে এ সংক্রান্ত খবরটি প্রকাশিত হয়েছিল।