মেইন ম্যেনু

৩২ কোপে স্ত্রীকে খুন করল স্বামী! অবৈধ সম্পর্কের জের?

image-5

স্ত্রীর অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে। এই সন্দেহ থেকেই পর পর ৩২ কোপ মেরে স্ত্রীকে খুন করল স্বামী। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার উলুবেড়িয়ার গড়চুমুকের একটি লজে। পালানোর সময়ে অভিযুক্ত যুবককে ধরে ফেলেন হোটেলকর্মী এবং স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত শুক্রবার গড়চুমুকের ওই লজে একটি ঘর ভাড়া নিয়েছিল অনিতা এবং গৌতম মাহাতো। শনিবার দুপুর তিনটে নাগাদ হোটেলের ঘরে জোরে চিৎকার শুনে ছুটে যান হোটেল কর্মীরা। সেখানে পৌঁছলে ঘরের ভিতর থেকে তাঁদের বলা হয়, স্বামী-স্ত্রীর ভিতরে পারিবারিক সমস্যা হয়েছে। তখন হোটেল কর্মীরা সেখান থেকে চলে আসেন। এর দশ মিনিটের মধ্যে হোটেল কর্মীরা দেখেন, গৌতম হোটেল থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে। তার সারা শরীরে আঘাত রয়েছে। সন্দেহ হওয়ায় তখন হোটেলকর্মী এবং স্থানীয় বাসিন্দারা ওই ব্যক্তিকে ধরে ফেলেন। ওই যুবক তখন দাবি করে, তার স্ত্রী তাকে খুন করার চেষ্টা করেছে।

এর পরে হোটেলকর্মী এবং স্থানীয় বাসিন্দারা গিয়ে দেখেন, হোটেলের ঘরের মধ্যেই অনিতার ক্ষতবিক্ষত দেহ পড়ে রয়েছে। খবর পেয়ে শ্যামপুর থানার পুলিশ এসে যুবককে গ্রেফতার করে। এদিনই ওই যুবককে আদালতে তোলা হয়। পুলিশ এবং সংবাদমাধ্যমের কাছে ওই যুবকের দাবি, তাকে খুন করার চক্রান্ত করে এই হোটেলে নিয়ে এসেছিল অনিতা। ঘটনার দিন ছুরি নিয়ে অনিতা তাকে আঘাত করে। মাথা ঠিক রাখতে না পেরে সে পাল্টা স্ত্রীর উপরে হামলা চালায় বলে দাবি করেছে গৌতম। মৃত মহিলার দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। সূত্রের খবর, ছুরি দিয়ে প্রায় ৩২ বার অনিতাকে কোপায় গৌতম।

যদিও, পুলিশ সূত্রে খবর, স্ত্রীর অবৈধ সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ করত ওই গৌতম। এই নিয়ে মাঝে মধ্যেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি হত। তার জেরেই স্ত্রীকে গৌতম খুন করেছে বলে পুলিশের সন্দেহ। সম্প্রতি এই দম্পতি দিল্লির দৌলতপুরে থাকত। আদতে তারা উত্তর ২৪ পরগনার বেলঘরিয়ার বাসিন্দা।