মেইন ম্যেনু

৬টি কৌশলে নিয়ন্ত্রণ করুন ‘ইন্টারভিউ এনজাইটি’

shutterstock_290087492

ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন? নার্ভাস লাগছে? অস্বাভাবিক কিছু নয়। একটি চাকরি বদলে দেবে আপনার জীবনের ধারা। আপনার দৈনন্দিন সমস্যার একটা বড় কারণ হয়ত অর্থাভাব। সেটা মিটে যাবে। আবার একই সাথে আপনি পাবেন সামাজিক মর্যাদা। আর এই চাকরিটা না হলে থেকে যেতে হবে আগের অবস্থানে। ইতিবাচক পরিবর্তনের স্বপ্নটা বাস্তবায়ণ হবে কিনা তা নির্ভর করছে এই একটা ইন্টারভিউ এর উপর। নার্ভাস তো লাগবেই।

কিন্তু নার্ভাসনেসের কারণেই ইন্টার্ভিউ খারাপ হতে পারে আপনার। হয়ত অনুমতি নিয়ে প্রবেশের পর স্বাভাবিকভাবে হাসতে ভুলে গেলেন আপনি। সহজ প্রশ্নের সহজ উত্তরটা মনেই পড়ল না। অথবা হ্যান্ডশেক করার সময় পড়ে গেল হাতের ফাইলটা। ছোট ছোট ভুল, হচ্ছে শুধু স্ট্রেস থাকার কারণে। তাই আবার এর উপর নিয়ন্ত্রণ থাকাও জরুরি। ক্যারিয়ার স্পেশালিস্ট ক্যাথরিন ব্রুক্স দিয়েছেন কিছু সমাধান-

খাবারের ব্যাপারে সচেতন হন
ইন্টারভিউ এর দিন অবশ্যই সচেতন থাকুন আপনার খাবারের ব্যাপারে। আপনি হয়ত ভাবছেন ধূমপান করলে আপনার স্ট্রেস কমবে। ভুল ভাবছেন। ইন্টারভিউ এর আগে ধূমপান করবেন না বা এলকোহল জাতীয় কিছু গ্রহণ করবেন না। হালকা কোন খাবার খান। ভারী খাবার আপনাকে ক্লান্ত করে দিতে করে। আবার কিছুই না খেলে আপনার দুশ্চিন্তা বেড়ে যেতে পারে। কারণ স্ট্রেস কমাতে খান, কিন্তু মজার কিছু ও হালকা কিছু।

নিজেকে চাপ প্রয়োগ করে শান্ত করতে যাবেন না
আপনি হয়ত বার বার নিজেকে বলছেন ‘শান্ত হও’। কিন্তু এতে আপনার মস্তিষ্ক আরও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ছে। কারণ, সে বার্তা পাচ্ছে, দুশ্চিন্তা না কমলে আপনার ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।

প্রস্তুতি নিন
ইন্টারভিউ বোর্ডে কি প্রশ্ন করা হবে সেটা নিয়ন্ত্রণ করা আপনার পক্ষে সম্ভব নয়। কিন্তু আপনি নিজের প্রস্তুতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে কীভাবে হাত মেলাবেন, হাসবেন, বসার অনুমতি চাইবেন এসব প্রাকটিস করুন। কিছু প্রশ্নের উত্তর মুখে বলে বলে নিজেকে পারদর্শী করতে থাকুন। প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে খোঁজখবর নিন। এতে কেন আপনি এই প্রতিষ্ঠানের সাথে কেন কাজ করতে চান, আপনার প্রত্যাশা কী এবং কেন নিজেকে যোগ্য মনে করছেন- এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দেওয়া সহজ হয়ে যাবে।

পোশাক
এমন পোশাক পরুন যা আপনাকে আত্মবিশ্বাসী করবে। অবশ্যই একটি ফরমাল পোশাক পরতে হবে আপনাকে। কিন্তু সেটি কোনভাবেই যেন বেশী আঁটসাঁট বা ঢিলেঢালা না হয়। অস্বস্তিদায়ক কাপড় এড়িয়ে চলুন। এমন একটি রঙ বেছে নিন যার ফলে সবার মাঝে আকর্ষণীয় লাগবে আপনাকে, চোখে পড়বে। কিন্তু রংটি যেন অবশ্যই আপনাকে মানিয়ে যায়। আপনার পোশাকই আপনাকে আত্মবিশ্বাসী করতে পারে অনেকটাই।

নিজের সাথে কথা বলুন
আপনি যখন স্ট্রেসড আপনার মস্তিষ্ক আপনাকে নানানভাবে ভয় দেখাতে শুরু করে। সে হয়ত বলে, ‘আজকে তো নিশ্চিত আমি এলোমেলো বলব।’ আজ কোনভাবেই আমাকে দেখতে ভাল লাগছে না’। নিজেকে পাল্টা প্রশ্ন করুন। কথা বলুন নিজের সাথে। যুক্তি দিয়ে ঠান্ডা মাথায় তাকে বোঝান তেমন কিছুই হবে না, কারণ আপনি এবার যথেষ্ট প্রস্তুতি নিয়েছেন এবং আপনি জানেন।

বডি ল্যাঙ্গুয়েজ
সঠিক বডি ল্যাংগুয়েজ প্রাকটিস করুন। কোনভাবে বসলে আপনাকে আত্মবিশ্বাসী লাগবে, কীভাবে তাকানো উচিৎ সেগুলো খেয়াল করুন। পা নাড়ানো, বার বার এদিক সেদিক তাকানো, চোখে চোখ রেখে প্রশ্নের উত্তর না দেওয়া এ সবই বলে আপনি মনোযোগী নন। তাই স্ট্রেস কমাতে আগে থেকেই বুঝে নিন কেমন হতে হবে আপনার চাল-চলন।

এই ৬টি বিষয় মনে রেখেই দেখুন, চাকরি আপনার অবশ্যই হবে। ইন্টারভিউ বোর্ডে সবাই আপনাকেই দেখবে, কারণ আপনি থাকবেন ঝলমলে আত্মবিশ্বাসী একজন মানুষ।