মেইন ম্যেনু

৬৮ বছরের মধ্যে পৃথিবীর সবচেয়ে নিকটে চাঁদ

ss-150928-supermoon-mbm-11_a89dd668aa88cc43e454b07af532aa1d-nbcnews-fp-1200-800

সোমবার (১৪ নভেম্বর) ৬৮ বছরের মধ্যে সবচেয়ে নিকট দূরত্বে চলে আসবে চাঁদ। নাসার হিসাব অনুযায়ী, ওইদিন পৃথিবীর কেন্দ্রবিন্দু থেকে চাঁদের দূরত্ব হবে ২ লাখ ২১ হাজার ৫২৪ মাইল বা ৩ লাখ ৫৬ হাজার ৫০৮ কিলোমিটার৷ ১৯৪৮ সালের ২৬ জানুয়ারির পর মাঝের এতোগুলো বছরে চাঁদ কখনো পৃথিবীর এতো কাছে আসেনি।

এ কারণে ওইদিন চাঁদকে স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় বড় দেখাবে। পৃথিবীর কাছে চলে আসার কারণে চাঁদকে বড় দেখায় বলে বিজ্ঞানীরা একে ‘সুপারমুন’ বলে থাকেন। তবে এবার চাঁদকে ১৪ শতাংশ বড় এবং ৩০ শতাংশ বেশি উজ্জ্বল দেখাবে বলে তাকে ‘এক্সট্রা সুপারমুন’ বলা হচ্ছে।

সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ পৃথিবীর সবচেয়ে কাছে চলে আসবে চাঁদ৷ দেড়টা নাগাদ পৃথিবী ও চাঁদ সমান্তরালে অবস্থান করবে৷ বিশেষ করে সূর্যাস্তের সময় এটি ভালোভাবে চোখে পড়বে।

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, ব্রিটেন থেকে এই বিশেষ চাঁদ সূর্যাস্তের সময় সবচেয়ে ভালোভাবে চোখে পড়বে৷ তবে এজন্য ১৪ নভেম্বর রাতের আকাশ মেঘমুক্ত থাকতে হবে৷

আর যদি আকাশ মেঘলাও থাকে, তার পরের কয়েক দিনও সুপারমুন দেখা যাবে, বলে নাসা থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে৷

এবার কোনও কারণে ‘সুপারমুন’ দেখতে না পেলে ফের অপেক্ষা করতে হবে আরও ১৮ বছর৷ কারণ ২০৩৪-এর নভেম্বর মাসে ফের চাঁদ পৃথিবীর এত কাছে আসবে বলে বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন৷

সোমবারের সুপারমুনের ফলে সাগরের ঢেউ আরও উঁচু হবে, তবে এত উঁচু নয় যে, তার ফলে প্লাবন দেখা দিতে পারে৷ কথাটা বলার কারণ এই যে, ২০১১ সালে জাপানে ভূমিকম্প ও সুনামির জন্যও ‘সুপারমুন’-কে দোষী করা হয়েছিল৷ পরে নাসা-কে সেই অপবাদ খণ্ডন করতে হয়৷