মেইন ম্যেনু

প্রতি ম্যাচে ২৫ লাখ টাকা পাবেন গেইল!

চিটাগাং ভাইকিংস সাপোর্টারদের বড় অংশের মন খারাপ হতেই পারে। নিজ শহরে প্রিয় দলের পক্ষে ক্রিস গেইলকে দেখা হয়নি। তামিম ইকবালের চিটাগাং ভাইকিংসের হয়ে ঢাকা তথা শেষ পর্ব খেলতে শুক্রবার রাজধানীতে আসছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ তথা বিশ্ব ক্রিকেটের ড্যাশিং উইলোবাজ ক্রিস গেইল।

চিটাগাং কোচ সালাউদ্দীনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার সকালেই রাজধানীতে পা রাখবেন গেইল। সঙ্গে আরো ক`টি নাম আছে। মিলার-ব্রেন্ডন ম্যাককালামও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের অন্যতম সফল ব্যাটসম্যান। তাদের দিনে বিশ্বের যে কোনো বোলিং শক্তিকে দুমড়ে-মুচড়ে দেয়ার ক্ষমতা রাখেন। যদি বলা হয়, এই মুহূর্তে টু-টোয়েন্টি ফরম্যাটে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যানের নাম কি? তাহলে সবার আগে চলে আসবে ক্রিস গেইলের নাম।

বিশ্বের তাবৎ বাঘা বাঘা বোলারের মাথাব্যথা। তার কাছে ভালো-মন্দের বাছবিচার নেই। গুড লেন্থ ,শর্ট অফ লেন্থ দুই লেন্থের ডেলিভারির বিপক্ষেই সমান সচল তার ব্যাট। মন চাইলে যাকে তাকে যে কোনো জায়গা দিয়ে উড়িয়ে মারতে পারেন। ‘আমি যাকে যেখান দিয়ে খুশি উড়িয়ে মারতে পারি। তা মারার পর্যাপ্ত ক্ষমতা আমার আছে।’- এই বোধ-উপলব্ধিটা আছে যথেষ্টই। এই আগ্রাসী মানসিকতা তার বড় সম্পদ ও শক্তি।

তার আক্রমণাত্মক এ্যাপ্রোচ, অতি মানবীয় শারীরিক সক্ষমতা এবং নিখুঁত ও যথার্থ টাইমিংয়ে অনেক ভালো ডেলিভারিও মুড়ি-মুড়কির মতো মাঠের বাইরে গিয়ে আছড়ে পড়ে। শুধু ক্রিকেটের অন্য সব আসরে বা সিরিজে নয়। বাংলাদেশের বিপিএলেও ক্রিস গেইল সমান সফল। একমাত্র ব্যাটসম্যান যার আছে তিন তিনটি সেঞ্চুরি। যার দুটি প্রথম বিপিএলে বরিশাল বার্নার্সের হয়ে। প্রথমটি ২০১২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে (৪৪ বলে ১০১)। দ্বিতীয়টি ১৪ ফেব্রুয়ারি (৬১ বলে ১১৬)।

এরপর ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ঢাকা গ্লাডিয়েটর্সের হয়ে সিলেট রয়ালসের বিপক্ষে আবার সেঞ্চুরি। ৫১ বলে ১২টা ছক্কায় ১১৪ রানে ঝড়ো ইনিংস খেলেন এই ক্যারিবিয়ান। কাজেই দেখা যাচ্ছে তার বিপিএল খেলতে আসা এবং ব্যাট হাতে মাঠে নামা মানেই ‘গেইল ঝড়’ বয়ে যাওয়া।

অনিশ্চয়তায় ভরা টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে শেষ ও নিশ্চিত বলে কিছু নেই। তারপরও তার অতীত পারফরম্যান্স এতটাই উজ্জ্বল যে গেইল খেলতে নামা মানেই কিছু একটা ঘটে যাওয়া। বলার অপেক্ষা রাখে না, অনেক চড়া মূল্যে তাকে দলে ভেড়ানো। চিটাগাং ভাইকিংস ফ্র্যাঞ্চাইজি ‘ডিবিএল গ্রুপ’ এবার প্রথম থেকেই গেইলের সাথে কথা-বার্তা চূড়ান্ত করে ফেলে।

জানা গেছে, এবারো বিপুল পরিমাণ অর্থের বিনিময়ে গেইলকে নেয়া। ক্রিকেটের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর ব্যাটসম্যানের বিপিএল খেলতে আসা নিয়ে রাজ্যের হৈ চৈ। গুঞ্জন। গত ৪৮ ঘণ্টা সবার মুখে একটাই প্রশ্ন- আচ্ছা, গেইল কত টাকায় আসছেন ? তার সাথে চিটাগাং ভাইকিংস ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কত টাকায় রফা হয়েছে? যেহেতু নিলামে বিক্রি হননি।

আইকন বলা হচ্ছে না। তবে সাকিব, তামিম, মুশফিক, মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহ, ইমরুল কায়েস ও সৌম্য-এই সাত জনকে এ+ ক্যাটাগোরিতে রাখা হয়েছে। তাদের দলে ভেড়াতে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্ধ গুণতে হয়েছে। কিন্তু গেইলের মতো বিশ্বতারকাদের কত হলে নেয়া যাবে, আয়োজক মহলের পক্ষ থেকে কোনো নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ বেঁধে দেয়া হয়নি। এটা হয়েছে ব্যক্তিগত পর্যায়ের যোগাযোগে।

জানা গেছে, বিপিএল শুরুর আগে গেইলের সঙ্গে কথাবার্তা চূড়ান্ত করে ফেলে চিটাগাং ফ্র্যাঞ্চাইজিরা। নির্ভরযোগ্য সূত্রের খবর, প্রতি ম্যাচের জন্য তিরিশ হাজার ডলারের বেশি (প্রায় ২৫ লাখ টাকা) পাবেন গেইল। ইতোমধ্যে আট ম্যাচ খেলে ফেলা চিটাগাং ভাইকিংসের আরো চার খেলা বাকি। শেষ চারে গেলে অন্তত আরো দুই ম্যাচ বাড়বে। তার মানে, ছয় ম্যাচ খেললে সোয়া কোটি টাকার ওপর পাবেন গেইল।



« (পূর্বের সংবাদ)